চট্টগ্রামে আটক ২২১ ভরি স্বর্ণ নিয়ে পাচারকারী

চট্টগ্রামে আটক ২২১ ভরি স্বর্ণ নিয়ে পাচারকারী

 চট্টগ্রামে আটক ২২১ ভরি স্বর্ণ নিয়ে পাচারকারী

gold price,gold,dora and the lost city of gold,gold cup,price of gold,nbc sports gold1,gold cup 2019,ucsb gold,teaching strategies gold,xbox live gold,gold spot price,gold rush,gold prices,rose gold,rose gold,games with gold    ,concacaf gold,honey gold,gold price per ounce,gold and silver pric,white gold,
২২১ ভরি স্বর্ণ পাওয়া গেছে চট্টগ্রামে পাচারকারী থেকে

১৪টি স্বর্ণের বার নিয়ে আটক হলো চট্টগ্রামের এক পাচারকারী। পুলিশ হাতে নাতে আটক করে উত্তম সেন নামের সেই ব্যাক্তি(৩৫)।তদন্ত সূত্রে জানা যায় তার বাড়ি পটিয়ার ব্রাহ্মণঘাটা।পিতা মৃত মানিক সেনের পুত্র। ২২১ ভরি স্বর্ণ রয়েছে সেই ১৪ টি বারে, যার মূল বর্তমান বাজারে এক কোটি ৪৩ লাখ ৬৫ হাজার টাকা।


শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে পাঁচটায় চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালী থানার স্টেশন রোড এলাকা থেকে উত্তম সেনকে আটক করে পুলিশ। পাচারকারী পুলিশকে বয়ান দেয় সে বার গুলার মালিক না।উত্তম সেন শিখার করেন এর আসল মালিক হাজারী গলির এসএন শিল্পালয়ের স্বত্ত্বাধিকারী সনজিত ধর।সনজিত হলেন  পটিয়ার গোবিন্দারখীল রাখাল বাবুর বাড়ির শিবু ধরের ছেলে।


কোতোয়ালী থানায় দায়ের হওয়া মামলা সূত্রে জানা গেছে স্বর্ণের বারের কথা।এর মধ্যে দুইটি স্বর্ণের গায়ে ইংরেজিতে খোদায় করা ARG 10 TOLAS 999.0।পাঁচটির গায়ে লিখা হয়েছে GULF GOLD REFINERY 10 Tolas GOLD 999.0।আরো তিনটিতে আছে,ETIHAD DUBAI-UAE 10 TOLAS, 999.0।এবং দুটি গায়ে s.a.m 10 TOLAS GOLD 999.0 লিখা আছে। ১৪ টি বারের মধ্যে ২ টি বারে কোন কিছু লিখা ছিল না।


বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসিন চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘আমাদের টহল টিম ১৪টি স্বর্ণের বারসহ উত্তম সেন নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানিয়েছেন এসব স্বর্ণ চোরাচালানীর মাধ্যমে 


বিদেশ থেকে চট্টগ্রাম আনা হয়েছে। আবার অবৈধভাবে ঢাকা পাচার করা হচ্ছিল। স্বর্ণের মালিক হাজারীগলির সনজিত ধর নামের এক ব্যবসায়ী। তিনি পলাতক রয়েছেন।’


ওসি মহসিন আরও জানান,পলাতক থাকা সনজিত ধর ও তার সহযোগী উত্তম সেন পাচার কৃত ২২১ স্বর্ণ নিজেদের কাছে রেখে ১৯৭৪ সালের আইন অনুসারে ২৫-ডি/২৫-বি ধারার অপরাধ করছেন।


তিনি বলেন,তদন্ত করে আমরা উত্তম সেন কে আদালতে পাঠাব।এবং তাদরে  দুইজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়েছে। পালাতক সনজিত ধরকে যতদিন আটক করা হয়নি ততদিন অভিযান অব্যাহত থাকবে।


প্রসঙ্গত, গত ১০ নভেম্বর আটটি স্বর্ণের বারসহ জোসেফ উদ্দিন রুমন নামের এক যুবককে আটক করেছিল কোতোয়ালী থানা পুলিশ। রুমন মোবাইল সেটের ব্যবসার আড়ালে স্বর্ণ চোরাচালানে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছিলেন পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ করার সময়।এছাড়া রুমনের কাছ থেকে পাওয়া যায় প্রায় ৮৮ ভরি স্বর্ণ।তার মাত্র সতের দিনের মধ্যে একই এলাকা থেকে পুলিশ উদ্ধার করে করে আরো ২২১ ভরি স্বর্ণ।

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন